ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করার নিয়ম। How to check driving license.

বর্তমানে বাংলাদেশে ৩টি মাধ্যমে Driving License চেক করা যায়। খুব অল্প সময়ে ঘরে বসে নিজে নিজেই চেক করতে পারবেন আপনার ড্রাইভিং লাইসেন্সের বর্তমান অবস্থা বা ড্রাইভিং লাইসেন্সের সঠিকতা। এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আমরা জানবো ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করার নিয়ম। চলুন জেনে নেই, ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করার নিয়ম।

ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করতে এখন আর BRTA সার্কেল অফিসে যাওয়ার প্রয়োজন নেই। অনলাইনের এই যুগে ড্রাইভিং লাইসেন্স এর জন্য আবেদন যেমন অনলাইনে করতে হয়, তেমনি আবেদন প্রক্রিয়ার সমস্ত কাজ শেষ করার পর অনলাইনের মাধ্যমেই জানা যাবে কবে নাগাদ লাইসেন্সটি হাতে পাওয়া যাবে।

আজকের এই আর্টিকেলটির মাধ্যমে আমরা বিস্তারিতভাবে জানবো কিভাবে ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করা যায়। আর নতুন ড্রাইভিং লাইসেন্স এর স্ট্যাটাস বা অবস্থা কিভাবে জানা যাও তাও আলোচনা করা হবে। তো চলুন শুরু করা যাক,ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করার নিয়ম।

ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করার নিয়ম।

বাংলাদেশে ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়া খুব জটিল। কিন্তু নিজে একটু কষ্ট করলে সহজেই ড্রাইভিং লাইসেন্স করা যায়। এতে কোন দালালের প্রয়োজন হবে না। প্রয়োজন ইচ্ছা, সাহস ও একটু পরিশ্রমের।

ড্রাইভিং লাইসেন্সের আবেদন করে আমাদের কিছুদিন অপেক্ষা করতে হয়। এ সময় ধৈর্য সহকরে অপেক্ষা করতে থাকি কবে পাবো আমার ড্রাইভিং লাইসেন্স। এসময় আমরা অনেকেই জানার চেষ্টা করি যে, লাইসেন্সটি কি অবস্থায় রয়েছে।

এছাড়া অনেকের ড্রাইভিং লাইসেন্স যাচাই করতে হয় যে, সেটি ভূয়া কিনা। বিশেষ করে ড্রাইভিং চাকরীর ক্ষেত্রে লাইসেন্স চেক করা একান্ত জরুরী।

এসব বিষয়কে সামনে রেখে BRTA বা বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (সংক্ষেপে বিআরটিএ) ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক বা যাচাই করার ব্যবস্থা করেছে। বর্তমানে ড্রাইভিং লাইসেন্স যাচাই প্রক্রিয়া আগের থেকে অনেক সহজ ও দ্রুত হয়েছে।

ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করার মাধ্যম।

বর্তমানে, Driving Licence Check করার জন্য তিনটি মাধ্যম রয়েছে। যথা-

  1. DL Checker App এর মাধ্যমে।
  2. সরাসরি BRTA ওয়েবসাইটের মাধ্যমে।
  3. মোবাইল SMS এর মাধ্যমে।

আজকে আমরা উপরের এই তিনটি মাধ্যমে ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করার বিভিন্ন পদ্ধতি সম্পর্কে সঠিক তথ্য তুলে ধরবো।  আশা করি, আর্টিকেলটি প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত পড়লে এখান থেকে আপনি সহজেই আপনার ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করার নিয়ম জানতে পারবেন।

ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করতে যা যা প্রয়োজন।

উপরের তিনটি মাধ্যমে ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করতে কিছু বিষয় জানা থাকতে হবে বা প্রয়োজন হবে। লাইসেন্স চেক করতে যে সব বিষয় আপনার জানা থাকতে হবে তা হলো-

  1. ড্রাইভিং লাইসেন্স নম্বর (পুরাতন ড্রাইভিং লাইসেন্স যাচাই করার জন্য প্রয়োজন)।
  2. DL রেফারেন্স নম্বর(আবেদনের পর অবস্থা জানার জন্য প্রয়োজন)।
  3. জন্ম তারিখ।

ঐ তিনটি তথ্য আপনার জানা থাকতে হবে। প্রথমটি আপনি যদি কোন ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক বা যাচাই করতে চান তাহলে বেশি প্রয়োজন।

আর দ্বিতীয়টি শুধু আপনার আবেদনের পর BRTA থেকে প্রদান করা স্লিপের মধ্যে থাকে। সেখানে আবার ড্রাইভিং লাইসেন্স নম্বর থাকেনা।

জন্ম তারিখ প্রয়োজন হয় BRTA ওয়েবসাইটের মাধ্যমে এবং DL Checker App এর মাধ্যমে চেক করতে প্রয়োজন হয়। তাছাড়া  মোবাইল SMS এর মাধ্যমে চেক করার জন্য জন্ম তারিখ দরকার নেই।

আরো জানুনঃ

ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করার নিয়ম।

এতো সময় আমরা জানলাম কি কি মাধ্যমে এবং কি কি বিষয় দিয়ে ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করা যায়। এখন আমরা জানবো কিভাবে বা কোন নিয়মে ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করা যায়। চলুন আলোচনা করা যাক ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করার নিয়ম।

DL Checker App এর মাধ্যমে।

DL Checker App এর মাধ্যমে ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করতে আপনার প্রয়োজন হবে একটি স্মার্ট মোবাইল ফোন। যাতে থাকতে হবে ইন্টারনেট সংযোগ।

এরপর মোবাইলের Play Store থেকে সার্চ বাটনে DL Checker App লিখে সার্চ করতে হবে। DL Checker লেখার সাথে সাথে নিচের ইন্টারফেইসটি চলে আসবে। এরপর অ্যাপটি ইন্সটল করে open করতে হবে।

ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করার নিয়ম।

এবার DL Checker App টি ওপেন করলে নিচের ইন্টারফেইসটি চলে আসবে।

ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করার নিয়ম।

এখানে উপরে দুটি অপশন দেখা যাচ্ছে, যথা-

  • DL NO./BRTA Ref. No.
  • Date of Birth

প্রথম অপশনে আপনার DL NO./BRTA Ref. No.(যে কোন একটি) বসাতে হবে। আর দ্বিতীয় অপশনে আপনার জন্ম তারিখ বসাতে হবে। এরপর নিচে সবুজ চিহ্নিত Search বাটনে প্রেস করতে হবে। কিছুখন অপেক্ষার পর আপনার সামনে ছবি সহ নিচে ইন্টারফেইসের মতো আপনার ড্রাইভিং লাইসেন্সটি চলে আসবে।

ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করার নিয়ম।

এখন ঐ তথ্যের সাথে আপনার হাতে থাকা ড্রাইভিং লাইসেন্সের তথ্য বা স্লিপের তথ্যের সাথে মিলিয়ে নিতে পারেন। আর আপনি যদি নতুন আবেদন করে থাকেন তাহলে আপনার লাইসেন্সের বর্তমান কি অবস্থা তা দেখা যাবে। নতুন ড্রাইভিং লাইসেন্সের বিভিন্ন স্ট্যাটাস দেখাবে। যেমন-

  • Ready to Print(প্রিন্টের জন্য প্রস্তুত)।
  • Ready to Delivery(আপনার ড্রাইভিং লাইসেন্স সম্পূর্ণ প্রস্তুত)।
  • Shipment received to circle Office(সার্কেল অফিসে পাঠানো হয়েছে)
  • Ready to yet print( প্রিন্ট সম্পূর্ণ হয়নি), ইত্যাদি।

সরাসরি BRTA ওয়েবসাইটের মাধ্যমে।

BRTA ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আপনি আপনার ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করতে চাইলে আপনার NID  ও মোবাইল নম্বর দিয়ে BRTA পোর্টালে নিবন্ধন করতে হবে।

নিবন্ধন করে একটি পাসওয়ার্ড নিতে হবে। এরপর সেই পাসওয়ার্ড ও মোবাইল নম্বর নিয়ে BRTA Portal এ প্রবেশ করে আপনার ড্রাইভিং লাইসেন্স সংক্রান্ত যে কোন সেবা গ্রহন করতে পারবেন।

তবে মনে রাখতে হবে, আপনি যে মোবাইল নম্বর ও NID  নম্বর দিয়ে নিবন্ধন করছেন ঐ মোবাইল নম্বরটি উক্ত NID নম্বর দিয়ে রেজিষ্ট্রারী হতে হবে।

মোবাইল SMS এর মাধ্যমে।

বর্তমানে মোবাইল মেসেজের মাধ্যমে মোটরযানের ফিটনেস, ট্যাক্সটোকেন ও রুটপারমিটের মেয়াদউর্ত্তীণের তারিখ ও ড্রাইভিং লাইসেন্স -এর সঠিকতা যাচাই করা যাবে।

আপনার মোবাইলের মেসেজ আপশনে গিয়ে ড্রাইভিং লাইসেন্স যাচাইয়ের জন্য DL<space> ড্রাইভিং লাইসেন্স নম্বর/DL.Ref. নম্বর লিখুন।

অথবা মোটরযানের তথ্যের জন্য VR<space> মোটরযানের রেজিস্ট্রেশন নম্বর (ইংরেজিতে ট্যাক্সটোকেন সনদে যেভাবে আছে) লিখে পাঠাতে হবে ২৬৯৬৯ নম্বরে অথবা এই 01552146222 নম্বরে মেসজ পাঠাতে পারেন।

মেসেজ পাঠানোর ২- ৫ মিনিটের মধ্যেই ফিরতি মেসেজে আপনার ড্রাইভিং লাইসেন্স এর তথ্য বা মোটরযানের তথ্য পেয়ে যাবেন । বর্তমানে শুধু মাত্র স্মার্ট কার্ড ড্রাইভিং লাইসেন্স বা লাইসেন্সের আবেদনের তথ্য যাচাই করা যাবে ।

শেষ কথা।

ড্রাইভিং লাইসেন্স আমাদের ব্যক্তি জীবনে একটি গুরুত্বপূর্ণ দলিল। বিশেষ করে যাদের রাস্তায় গাড়ি চালাতে হয় তাদের এটি ছাড়া রাস্তায় বের হওয়া দন্ডনীয় অপরাধ। কিন্তু এই লাইসেন্সটি করতে অনেক ঝামেলা পোহাতে হয়। তবে একটু সচেতন হলে সহজেই নিজের ড্রাইভিং লাইসেন্স নিজেই করা যায়।

নিজের লাইসেন্স নিজে করলে যেমন খরচ কম হয়, তেমনি দালালদের হয়রানী এবং দুর্নীতি অনেকাংশে কমে যাবে। সাথে সাথে যে কোন লাইসেন্স চেক বা যাচাই করা, নিজের লাইসেন্সের অবস্থা জানা যাবে এখন অনলাইনের এবং মোবাইলের মাধ্যমে।

আশা করি উপরের লেখাটি সম্পূর্ণ পড়লে সহজেই আপনি জানতে পারবেন ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করার নিয়ম।

About Author

AMINUL ISLAM

মোঃ আমিনুল ইসলাম। পেশায় একজন ব্যাংকার। চাকরির পাশাপাশি লেখা লেখির অভ্যাস থেকে ব্লগিং করা। এই ব্লগে বিভন্ন প্রযুক্তি , সরকারি সেবা, ব্যাংকিং, আইন ও নিয়ম কানুন, এবং ইসলামিক সংস্কৃতি বিষয়ক বিভিন্ন তথ্য শেয়ার করেছি।

Leave a Comment